ভালোবাসা ব্যথানাশক

Posted on July 8, 2011

0


মানুষের সঙ্গে মানুষের সবচেয়ে মধুময় যে সম্পর্ক তাকেই আমরা ভালোবাসা বলি। ‘এল ও ভি ই’ লাভ মানে কী/দুটি মনে জানাজানি তাও বুঝনি’ গানের এই কলি প্রেমিকের হৃদয় উদাস না করে পারে না। তাছাড়া সাহিত্যে ভালোবাসার ওপর রচিত কবিতা, গল্প, উপন্যাস ও বিয়োগান্ত প্রেমের অশ্রুসিক্ত কাহিনীর কোনো শেষ নেই। ভালোবেসে প্রেমিক-প্রেমিকার আত্মবলিদানের ঘটনা যেমন আমরা জানি, তেমনি জানি পছন্দের মানুষকে ভালোবেসে একজন মানুষ দুনিয়ার সব দুঃখ-বেদনা ভুলে থাকতে পারেন এমন ঘটনার কথাও। এই চিরচেনা সত্যই বাস্তবে প্রমাণিত হয়েছে মনোবিজ্ঞানীদের এক সর্বসাম্প্রতিক গবেষণায়। ওই গবেষণায় দেখা গেছে, প্রকৃত ভালোবাসা মানুষের মস্তিষ্কে ব্যথানাশক অ্যাসপিরিন জাতীয় ওষুধের মতো কাজ করে। ভালোবাসার শিহরণ মানুষকে ভুলিয়ে দেয় যাপিত জীবনের মনঃস্তাপ ও দুঃখ-কষ্টের কথা।
মানুষের মনের ওপর ভালোবাসার প্রভাব পরীক্ষা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞানীরা। কম্পিউটারাইজড ব্রেইন-স্ক্যানিং মেশিন ব্যবহার করে তারা ১৭ প্রেমিক নারীর ওপর পরীক্ষা চালিয়েছেন। গবেষণার নেতৃত্ব দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞানের সহযোহী অধ্যাপক নাওমি আইজেনবার্গার ।
পরীক্ষায় দেখা গেছে, একজন নারীকে যখন ব্রেইন স্ক্যানিং মেশিনের পর্দায় সাপ বা মাড়কসা দেখানো হয়েছে তখন তার মস্তিষ্কে ভয়, ব্যথা, কষ্ট ও যন্ত্রণা উদ্রেককারী অংশ বেশি মাত্রায় সক্রিয়তা প্রদর্শন করেছে। আবার যখন ওই নারীকে লাইফ-পার্টনারের (ভালোবাসার মানুষ ) ছবি কিংবা তাদের অন্তরঙ্গ সময়ের কোনো দৃশ্য দেখানো হয়েছে তখন তার মস্তিষ্কে সুখবোধের অংশ দারুণভাবে সক্রিয়তা দেখিয়েছে এবং মহিলাটি সাপ দেখার বিরূপ দৃশ্য চোখের পলকে ভুলে গিয়ে সুখ ও আনন্দ পেয়েছেন। এতে গবেষকরা একমত হয়েছেন, খাঁটি ভালোবাসা মানুষের মনে ব্যথানাশক হিসেবে অ্যাসপিরিন জাতীয় ওষুধের মতোই কাজ করে।
সমকাল

Advertisements