Fun Facts: ১৮টি মজার তথ্য: সত্য তথ্য

Posted on July 9, 2011

0


১. Google মানে কি? ১ এর পর ১০০টি ‘০’।
হ্যাঁ ভাই…
10000000000,0000000000,0000000000,0000000000,0000000000,
0000000000,0000000000,0000000000,0000000000,0000000000.
হ্যাঁ আপু, ১০০টি শূন্য!

২. আপনি কি ডানহাতি? তাহলে খাওয়ার সময় খেয়াল করুন আপনি বেশীরভাগ সময় ডান চোয়ালে খাবার চিবুচ্ছেন কিনা। বাঁহাতি হলে বাম চোয়ালে।

৩. টাইটানিক হচ্ছে ১ম জাহাজ যারা SOS সিগন্যাল ব্যবহার করেছিল।

৪. টাইটানিক জাহাজ তৈরীতে খরচ হয়েছিল ৭ মিলিয়ন ডলার। আর টাইটানিক সিনেমা তৈরীতে খরচ হয়েছে ২০০ মিলিয়ন ডলার। 

৫. পেঁয়াজ ছোলার সময় চুয়িংগাম চিবুলে চোখে পানি আসে না। বিশ্বাস হলো না? মুখে চুয়িংগাম নিয়ে চোখ বড় বড় করে পেঁয়াজ ছিলতে শুরু করেন।

৬. একটু ডাক্তারি। ছোটতে ডাক্তারের কাছে গেলেই ডাক্তার জিব দেখতে চাইতেন। আসলে জিব যদি পিংক রং এর হয়, তাহলে তা জীবাণূমুক্ত। সাদা হলে বুঝতে হবে ব্যাকটেরিয়ার আস্তরণ আছে। আয়নায় এখনই দেখুন।

৭. আরেকটু ডাক্তারি। আপনার বাম ফুসফুস ডানের চেয়ে ছোট কারণ সে হার্ট এর জন্য জায়গা করে দিয়েছে। এত ভালবাসাবাসি!

৮. আবারও ডাক্তারি? কানে সামুদ্রিক শংখ চেপে ধরলে যে গর্জন শুনতে পাই, তা আসলে কানের দেয়ালের শিরা-উপশিরায় রক্তের ছুটে চলা স্রোতের শব্দের বর্ধিত রূপ। হার্টের আওয়াজ ওভাবে শুনতে পেলে কি হতো?

৯. বাদুড় কি আর দেখতে পান? বাদুড়েরা কোন গুহা থেকে বের হওয়ার সময় সবসময় বাম দিকে ঘুরে যায়। ওরা বাঁমাথি নাকি?

১০. আপনি কি পুরুষ মানুষ? দেখুন তো আপনার শার্টের বোতামটা ডানদিকে কিনা? আপনি মহিলা হলে দেখুন তো বোতামটা বামদিকে কিনা? এমনটা কেন হয়? জানি না। দর্জিরা জানতে পারে।

১১. মধু হজম করা সহজ কারণ মৌমাছি তো খাবারটা একবার হজম করে আপনার জন্য রেখেছে। তাই বলে মধু খাওয়া বন্ধ করবেন না।

১২. আংগুল মটকালে যে আওয়াজ শুনতে পান সেটি হলো নাইট্রোজেন গ্যাস এর বুদবুদ ফাটার শব্দ। হাড্ডুর ফাঁকে নাইট্রোজেন গ্যাস গেল কিভাবে?

১৩. বড় কাঙ্গারুরা একবারের লাফে ৩০ ফুট পার হয়। আপনি কি লংজাম্প চ্যাম্পিয়ন ছিলেন? একবার ট্রাই করে দেখেন।

১৪. আনন্দদায়ক কিছু দেখলে আমাদের চোখের পিউপিল ৪৫% বেশী বড় হয়ে পড়ে। মাঝে মাঝে এমন কিছু দেখুন। বেশী দেখলে পিউপিল আবার স্বাভাবিকতা হারিয়ে ফেলতে পারে। তাই নাকি?

১৫. বেশীরভাগ ফুটবল খেলোয়াড় একবারের খেলায় ৭ মাইল দৌড়ায়। বাস্কেটবল খেলোয়াড়রা কতটুকু দৌড়ায়? জানা আছে কি?

১৬. চোখের কর্ণিয়া: দেহের একমাত্র অংশ যে রক্ত সঞ্চালন পায় না, সে সরাসরি বাতাস থেকে অক্সিজেন নেয়। কখনো ভাবিইনি।

১৭. স্পেনে কোলগেট টুথপেস্টের বিজ্ঞাপনে কোম্পানিকে খুব ঝামেলা পোহাতে হয়। কারণ স্পেনে ‘কোলগেট’ এর অর্থ দাঁড়ায় ‘যাও গলায় ফাঁস দাও’। ওদেশে তাহলে বিজ্ঞাপনটা কিভাবে হয়? স্পেনের কেউ বলবেন কি?

১৮. এবার শেষমেষ একটুখানি ভাস্কর্যবিদ্যা। বিদেশে গিয়ে পার্কে যদি ঘোড়ায় চড়া মূর্তি দেখেন তাহলে কয়েকটা ধরনে দেখবেন। ঘোড়ার দুই পা যদি বাতাসে থাকে, তাহলে ঘোড় সওয়ার যুদ্ধে মারা গেছেন। এক পা বাতাসে থাকলে যুদ্ধে আহত হয়ে পরে মারা গেছেন। আর দুই পা যদি মাটিতে থাকে তাহলে ঘোড় সওয়ার এর স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। বিশ্বাস না হলে ইউরোপ ঘুরে আসুন।

সূত্র: ইন্টারনেট সামু