ঘিলুই সব সৌন্দর্যের মূল

Posted on July 11, 2011

0


যখন আমরা বলি-সৌন্দর্য দর্শকের দেখার মধ্যে, অর্থাৎ চোখের মধ্যেই নিহিত, তখন আমরা সত্য থেকে ইঞ্চিখানেক দূরে থাকি। কেননা বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, মস্তিষ্কের যে অংশটি মানুষের চোখে বা মনে সুন্দরের অনুভূতি তৈরি করে, সেটি চোখের একেবারে পেছন দিকে ইঞ্চিখানেক দূরত্বে অবস্থিত। মস্তিষ্কের ওই বিশেষ অংশটির কেতাবি নাম মিডিয়াল অরবিটো-ফ্রন্টাল কর্টেঙ্। কোনো ব্যক্তি-বিষয়-বস্তু সম্পর্কে এটিই মানুষের মনে সুন্দর বা আনন্দজনক অনুভূতি জাগিয়ে তোলে বলে গবেষকরা নিশ্চিত হয়েছেন। অর্থাৎ সৌন্দর্য মানুষের চোখে নয়, আসলে থাকে তার ঘিলুতে।
পিএলওএস ওয়ান নামে এক সাময়িকীতে ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডনের গবেষকরা জানিয়েছেন, মানুষের মনে সুন্দর বা প্রশংসার মতো অনুভূতি মস্তিষ্কের কোন অংশটি নিয়ন্ত্রণ করে, তা এত দিন জানা ছিল না। সম্প্রতি এক গবেষণায় তা জানা সম্ভব হয়েছে। এ গবেষণায় ২১ তরুণ-তরুণীকে কিছু চিত্রকর্ম ও সংগীত শুনতে দেওয়া হয়। এ সময় তাদের প্রত্যেকের মস্তিষ্কের স্ক্যান অনুসরণ করা হয়। তখন দেখা গেছে, যখন কোনো চিত্রকর্ম বা সংগীত কেউ পছন্দ বা প্রশংসার দৃষ্টিতে দেখেছে, তখনই তার মস্তিষ্কের মিডিয়াল অরবিটো-ফ্রন্টাল কর্টেঙ্ অংশটি অনেক বেশি উদ্দীপিত হয়ে উঠেছে।গবেষক সেমির জেকি জানিয়েছেন, সৌন্দর্যের মতো ব্যক্তিনিষ্ঠ ও বায়বীয় বিষয় অতীত কাল থেকেই বিতর্কিত। তবে এ গবেষণায় অন্তত এটি জানা সম্ভব হয়েছে যে, মস্তিষ্কের ঠিক কোন অঞ্চলটি এর অনুভূতি জাগিয়ে তোলে। তিনি জানান, মস্তিষ্কের ঠিক কেন্দ্রের কাছাকছি আরো কডেট নিউক্লিয়াস নামে একটি অংশ রয়েছে। মানুষ যখন কোনো বিষয়ে বেশি মনোযোগ দেওয়ার চেষ্টা করে তখন সেটিও বেশি উদ্দীপিত হয়ে ওঠে। এ ছাড়া মানুষ যখন তার ভালোবাসার মানুষকে দেখে তখনো কডেট নিউক্লিয়াস অনেক বেশি উদ্দীপনা দেখায়। এর আগে এ অংশটি অনুসরণ করে জানা গিয়েছিল, মা ও প্রেমিকা বা স্ত্রীর প্রতি মানুষের ভালোবাসার ধরন আসলে একই। সূত্র : দ্য ডেইলিমেইল অনলাইন।